৯ দিনে শিখুন কীভাবে সোশ্যাল মিডিয়া থেকে রেগুলার ক্লায়েন্ট আপনার বিজনেসে নিয়ে আসতে হয়

কিভাবে সম্ভব ? রহস্য বের করার জন্য ভিডিও টি শেষ পর্যন্ত দেখুন

প্রোগ্রামে নিচের ৪ টি বিষয়ের উপর গ্রেনেড মারা হবে যাতে প্রতিটি জিনিস আলাদা আলাদা ভাবে দেখা যায়

ভালো আইডিয়া, স্কিল অথবা প্রোডাক্ট থাকা সত্যেও সঠিক মার্কেটিং না জানার কারণে আমরা স্বাধীন বিজনেস এবং লয়াল ক্লায়েন্ট তৈরি করতে পারিনা যা আমাদের বিজনেসকে সাস্টেইনেবল পজিশনে নিয়ে যাবে

১। ইউনিভারসিটি পড়াশোনা করে অথবা কোন প্রতিষ্ঠান থেকে স্কিল ডেভেলপমেন্ট এর পরেও মার্কেটিং না জানার কারণে বিজনেস করা হয়না

২। সঠিক মার্কেটিং না জানার কারণে কীভাবে বিজনেসের সেল এবং রেভেনিউ বাঁড়াতে হয় তা বুঝি না আর তাই যেকোনো সময় বিজনেসের ফলডাউন হয়

৩। যারা ফ্রীল্যান্সিং করি তারা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে ফাইভার অথবা আপওয়ার্ক মার্কেটপ্লেসেই নিজেকে সীমাবদ্ধ রাখি তখন বাহিরে মার্কেটিং করা সম্ভব হয় না

৪। মারকেটপ্লেস নির্ভরতার কারণে ক্লায়েন্ট এর কাছে নিজের সার্ভিস অথবা প্রোডাক্টের প্রাইস বৃদ্ধি করতে না পারায় টীম ম্যানেজ করা কঠিন হয়ে যায়

৫। মার্কেটিং না জানার কারণে আমরা বুঝতে পারিনা যে একজন ক্লায়েন্ট এর কতটুকু সার্ভিস দরকার এবং সেই ক্লায়েন্ট এর কাছে কীভাবে লং টার্ম বেসিসে সেলস জেনারেট করতে হয়

৬। লো পেয়িং এবং নেগেটিভ ক্লায়েন্টরা পানির দামে জাহাজ কিনতে চায় তাই তাদের সার্ভিস রিভিশন, মডিফিকেশন এবং রিফান্ডের ভয়ে অনেক সময় নষ্ট হয় যেখানে বিজনেসের কোন ইম্প্রুভমেন্ট আসেনা

৭। সঠিক প্ল্যানিং এর ওভাবে দিন শেষে নিজের জন্য এবং ফ্যামিলির জন্য সময় থাকেনা আর সময় না থাকার কারণে নলেজ বৃদ্ধি করার জন্য কিছু শিখতে পারিনা

যদি আপনার বিজনেসে আমি টীম মেম্বার নিয়ে কাজ না করতে পারেন তাহলে কখনোই স্বাধীনতা এবং লাইফের কোন পরিবর্তন আসবেনা, এইটা লিখে রাখেন।

আমি ২০১৭ সালে যখন ফাইভারে র‍্যাঙ্কিং ডাউন হওয়ার পর প্রথম নিজের টীম এবং ব্যাবসা নিয়ে ঝুঁকিতে পরি ঠিক তখন দিশেহারা হয়ে যাই যে কী করবো আর করা উচিৎ ভবিষ্যতের জন্য? আমি বিভিন্ন কিছু চেষ্টা করা শুরু করি যেমন আপাওয়ার্কে বিড করে কাজ করা, সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং (স্প্যামিং বলতে পারেন), ভিডিও মার্কেটিং ইত্যাদি কিন্তু আমার হুট করে র‍্যাঙ্কিং ডাউন হওয়ার কারণে আমি যেমনটা বিধ্বস্ত হয়ে কাই ঠিক তেমনি আমার কোন মার্কেটিং এবং অন্য রাস্তাগুলো ঠিক মতো কাজ করেনি। আমার আপওয়ার্ক প্রোফাইল থাকা সত্যেও আমি ভালো অবস্থানে ছিলাম না কারণ যেকোনো মারকেটপ্লেসে রেগুলারিটি না থাকলে আপনি প্রথমেই একটি টীম নিয়ে বড় বড় প্রজেক্ট পাবেন না।

এইসকল সমস্যা শুধুমাত্র হয়েছে সঠিক বিজনেস এবং মার্কেটিং প্ল্যান না থাকার কারণে, আপনার প্ল্যান আপনাকে সঠিক স্ট্রেটেজিতে আগাতে সাহায্য করবে। আপনি যদি মার্কেটিং জানেন তাহলে খুব সহজেই বুঝতে পারবেন যে ভবিষ্যতে আপনাকে কীভাবে বিজনেস প্ল্যান অনুযায়ী আগাতে হবে কারণ আপনার মার্কেটিং স্ট্রেটেজি আপনাকে বলে দিবে আপনার কাস্টমার কি চায়? কখন চায়? এবং কী কী চাইতে পারে আর সেই অনুযায়ী আপনার প্রোডাক্ট সার্ভিস দিতে পারবেন

আমি যখন এই সমস্যাগুলো ফেইস করছি তখন সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং নিয়ে অন্তত ৬ মাস স্টাডি করেছি এবং বিভিন্ন টেস্টিং এর মাধ্যমে ইনবাউন্ড মার্কেটিং কে বেছে নিয়েছি নিজের এজেন্সি বিজনেসকে সহজ এবং অটোমেটেড করার জন্য। এখন আমি চাইলেই আমার টীম মেম্বার বাঁড়াতে এবং কমাতে পারি নিজের চাহিদা অনুযায়ী কারণ আমি জানি আমার কাস্টমার কখন আসবে এবং কোথায় থেকে আসবে।

কিন্তু আপনি যদি সঠিক মার্কেটিং শিখে নিতে পারেন তাহলে আপনার কখনোই বিজনেসে ভয় থাকবেনা যে আপনার কাস্টমার কখন আসবে আর আপনি কখন বিক্রি করবেন

মার্কেটিং জানলে কী কী লাভ হবে যা আপনি এখনো জানেন না?

এইযে দেখুন মার্কেটিং জানার পর তাদের আউটপুট

কী কী সুবিধা রয়েছে প্রোগ্রামে জয়েন করলে?

প্রোগ্রামে জয়েন করলে আপনি আজীবন Locked Business এর মেম্বার হয়ে যাবেন যেখানে আপনাকে লাইফটাইম সাপোর্ট দেওয়ার হবে

1. Dedicated Private group: প্রোগ্রামে জয়েন করা মেম্বাররা ডেডিকেটেড প্রাইভেট গ্রুপে জয়েন হতে পারবেন যেখানে প্রোগ্রাম রিলেটেড আপনার সমস্যার সমাধান পেয়ে যাবেন প্রোগ্রাম শেষ হয়ে গেলেও।

2. Weekly live session with Q&A: প্রতি দুই সপ্তাহে অন্তত ১ বার অথবা প্রতি সপ্তাহে ১ বার জুম লাইভ সেশন থাকবে এবং গ্রুপে লাইভ করা হবে যেখানে আপনার সাথে সরাসরি আপনার বিজনেসের বর্তমান সমস্যার সমাধান পাবেন

3. Consultancy: প্রোগ্রাম বিভিন্ন একশন স্টেপ আছে যা কমপ্লিট করলেই পাবেন ফ্রী কনসালটেন্সি যেখানে আপনার বিজনেস এর সঠিকভাবে চালাতে যা যা লাগে তাতে হেল্প করা হবে

4. Private Email Support: প্রোগ্রামে জয়েন হলে প্রাইভেট এমেইল সাপোর্ট আছে শুধুমাত্র পেইড মেম্বারদের জন্য যারা যেকোনো টেকনিক্যাল সমস্যার সমাধান পাবেন ......এইটা ৮ উইকস এর ল্যান্ডিং পেজ আছে ঐটা থেকে কপি করতে পারো।

 9 টি স্টেপে ক্লায়েন্ট নেটওয়ার্ক তৈরি করুন এবং টীম বৃদ্ধি করুন

এখন আপনি বুঝতে পেরেছেন আসলেই সম্ভব ,হে আসলেই সম্ভব কারণ অন্যরা এইভাবেই ক্লায়েন্ট পেয়েছে

প্রোগ্রাম স্টার্ট কখন হবে এন্ড ক্লাস কখন হবে ?

ক্লাস স্টার্ট হবে ১৫ মে থেকে

ক্লাস হবে প্রতি শুক্রবার এন্ড শনিবার সকাল ৭ ৩০ টা থেকে

প্রোগ্রামে মেম্বার হতে হলে বা জয়েন করার মেম্বারশীপ ফি

এই প্রোগ্রামে জয়েন করলে আপনি লকড বিজনেসের লেভেল-২ মেম্বারশীপ হয়ে যাবেন যার জন্য আপনার পে করতে হবে ১৫০০০ টাকা।

যেহেতো এই প্রোগ্রাম এখন ফার্স্ট স্টার্ট হবে তাই
শুধুমাত্র আপনাদের জন্য ১০০০০ টাকা।

প্রোগ্রামে জয়েন করার আগে লাইক পেজে কথা বলে নিবেন (নিচে লাইক পেজের লিংক দেওয়া আছে )

কিছু নিয়মিত প্রশ্ন এবং উত্তর

যে কেউ এনরোল করতে পারবে না। যার ডিজিটাল প্রোডাক্ট বা সার্ভিস আছে এন্ড ওই সার্ভিস অনুযায়ী স্কিল রয়েছে সেই এনরোল করতে পারবে। কনফিউশন থাকলে আবার ভিডিও দেখুন

অবশ্যই! আপনি এই প্রোগ্রামে একবার এনরোল করা মাত্রই লাইফটাইম অ্যাকসেস পেয়ে যাবেন৷

প্রোগ্রাম শেষ বা করা অবস্থায় আপনি ক্লায়েন্ট পাবেন এইটার কোনো গেরান্টি নাই বাট প্রোগ্রাম দেখানো স্টেপ বাই স্টেপ গাইডলাইনগুলো যদি ফলো করেন এবং এটার পেছনে এনাফ টাইম ও ইফোর্ট দেন, তাহলে অবশ্যই ক্লায়েন্ট পেতে শুরু করবেন।

এই প্রোগ্রামের সকল ভিডিও রেকর্ড থাকবে।

টাকা ইনস্টলমেন্টে দেওয়া যাবে না

প্রোগ্রাম শেষ করার পর আপনি বিজনেস স্টার্ট করতে পারবেন এন্ড বিজনেস গ্রোথ করতে পারবেন।

প্রোগ্রাম রয়েছে ডেডিকেটেড প্রাইভেট গ্রুপ এবং টেকনিক্যাল সাপোর্ট। যতদিন গ্রুপ এন্ড আমি সুস্থ অবস্থায় থাকবো ততদিন সাপর্ট পাবেন।